Walton Primo RM2 – হ্যান্ডস অন রিভিউ | পিসি হেল্পলাইন বিডি (PC Helpline BD)
বিজ্ঞাপন
HomeরিভিউWalton Primo RM2 – হ্যান্ডস অন রিভিউ

1 বছর আগে (আগস্ট ১৬, ২০১৫) 328 বার দেখা হয়েছে

Walton Primo RM2 – হ্যান্ডস অন রিভিউ

Category: রিভিউ | Tags: , , , by

বিজ্ঞাপন
Domain Hosting Offer

আধুনিক যুগে কম্পিউটার ছোট হয়ে স্মার্টফোন নামে মানুষের হাতে ধরা দিয়েছে। তার উপর আবার এসব স্মার্টফোন এ নতুন নতুন জিনিস এড করে স্মার্টফোন কে আল্ট্রা স্মার্টফোন বানানো হচ্ছে!! অসাম সব ফিচার নিয়ে কোন বিদেশি কোম্পানি নয় আর, আমাদের দেশি কোম্পানি Walton নিয়ে এল তেমনি একটি সেট – Walton Primo RM2!!! অসাম সব ফিচারে ঠাসা এই স্মার্টফোনটি, আর সবচেয়ে বড় কথা দাম মাত্র ১১,৯৯০ টাকা! এই দামে এত ভাল ফিচারের সেট আরেকটাও পাবেন বলে মনে হয় না!

৫ ইঞ্চি এইচ ডি ডিসপ্লে তে ইউজ করা হয়েছে কর্নিং গরিলা গ্লাস ২! আই পি এস টেকনোলজি যুক্ত এই ডিসপ্লের ভিউইং এঙ্গেল চমৎকার!

১.৩ গিগাহার্জ প্রসেসর, 2 জিবি র‍্যাম, 16 জিবি রম আর মালি ৪০০ জিপিইউ আপনাকে দেবে আপনার কাংক্ষিত পারফরমেন্স!

BSI সেন্সর আপনার ছবি তোলার এক্সপেরিয়েন্স কে করবে আরো মজাদার!

অসাধারণ ইউজার ইন্টারফেস, অসাম সব ফিচার নিয়ে এই ফোন আপনি পাবেন মাত্র  ১১,৯৯০ টাকায়!

আজ আমি আপনাদের জন্য নিয়ে এলাম এই অসাধারণ সেটটির হ্যান্ডস অন রিভিউ! আশা করি ভাল লাগবে আপনাদের। চলুন শুরু করি।

 

Walton Primo RM2 এর কিছু পয়েন্টেড আউট ফিচারস, এই ফোনটি নিয়ে কথা বলতে গেলে প্রথমেই বলতে হয়ঃ
১. এন্ড্রয়েড 5.0 Lollipop
২. ডুয়াল সিম ৩জি সাপোর্ট! (মিনি+ম্যাক্রো)
৩. ৫ ইঞ্চি ফুল এইচ ডি আই পি এস ডিসপ্লে (১২৮০*৭২০), সাথে কর্নিং গরিলা গ্লাস 2 এর প্রোটেকশন!
৪. Mediatek চিপসেট
৫.1.3 GHz Quad Core প্রসেসর
৬. 2 জিবি র‍্যাম
৭. 16 জিবি রম
৮. মালি ৪০০ এম পি জিপিইউ
৯. BSI ও Auto Focus সম্বলিত 16 মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা
১০. 5 মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা
১১. অ্যাক্সেলারো মিটার ৩ডি, প্রক্সিমিটি সেন্সর ও লাইট সেন্সর।
১২. 5000 এম এ এইচ এর লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি
১৩. আর, এই সেটের আসল দিক!! অসাম সব ফিচারস! যেমনঃ OTA, OTG, Anti Theft, Smart Gesture,

 

সেটটির সাথে যা যা থাকছেঃ
১. 5০০০ এম এ এইচ এর লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি
২. চার্জার অ্যাডাপ্টার
৩. ডাটা ক্যাবল
৪. ইয়ারফোন
৫. ইউজার ম্যানুয়াল
৬. ওয়ারেন্টি কার্ড
৭. একটি এক্সট্রা স্ক্রিন প্রটেক্টর

অপারেটিং সিস্টেম:
এই সেটটিতে অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে 5.0 Lollipop ব্যবহার করা হয়েছে।

 

ডিজাইন ও বিল্ড কোয়ালিটিঃ
Walton Primo RM ফোনটির ডিজাইন ও স্টাইল খুবই সুন্দর! ফোনটি ক্যারি করেও আপনি মজা পাবেন। ফোনটি 146.5MM মিলিমিটার দীর্ঘ, 71.5 MM মিলিমিটার প্রশস্থ এবং 9.8 MM মিলিমিটার পুরু।

 

ফোনটির পিছনের দিকে রয়েছে BSI 13 MP with Auto Focus রিয়ার ক্যামেরা ও নিচে লাউডস্পীকার

 

 

এবং BSI 5.0 MP with Auto Focus সামনের দিকে ফ্রন্ট ক্যামেরা, লাইট ও প্রক্সিমিটি সেন্সর সহ রয়েছে ক্যাপাসিটিভ টাচ বাটনস।

 

 

ফোনটির ম্যাটেরিয়াল স্টাইলের ব্যাক কভারের ফলে ফোনের লুক আরো প্রিমিয়াম হয়েছে। তাছাড়া ফোনটি ধরে রাখাও হবে আরো আরামদায়ক।

ফোনটির পিছনের দিকে কভারের ভিতর আপনি সিম এবং এস ডি কার্ড ইউজ করতে পারবেন।

ডিসপ্লেঃ
Walton Primo RM2 এ ডিসপ্লে হিসেবে HD Display, (16.7 M Color)  ব্যবহার করা হয়েছে। এই ডিসপ্লের ফিজিক্যাল সাইজ ৫ ইঞ্চি। ডিসপ্লের রেজুলেশন ১২৮০*৭২০, ডিসপ্লে ডেনসিটি ৩২০ ডিপিআই। এছাড়া এই ফোনে ডিসপ্লের প্রোটেকশন হিসেবে দেওয়া হয়েছে কর্নিং গরিলা গ্লাস 2!! তাই এই এইচ ডি ডিসপ্লেতে ভিউইং এক্সপেরিয়েন্স ভাল হওয়ার সাথে সাথে সেফটি ও বাড়বে!
এই ফোনে 5 আঙ্গুল পর্যন্ত মাল্টি টাচ সাপোর্ট করে।
ইউজার ইন্টারফেসঃ
Walton Primo RM2 ফোনের ইউজার ইন্টারফেস নিয়ে আর কি বলব! এককথায় অসাধারণ! আমার পারসোনালি খুবই ভাল লেগেছে। ইউ আই টা যেমন ল্যাগ ফ্রী, তেমন ই স্টাইলিশ! স্টক লাঞ্চার এর সাথ আপনি আরো অনেক থীম ইউজ করে ফোনকে আরো কাস্টোমাইজ করতে পারবেন! স্ট্যাটাস বার টাও খুব সুন্দর! সেটিংস এপ এর ইউ আই এর তো তুলনা নেই! আপনার যারা আগেও এন্ড্রয়েড ইউজ করেছেন এবং করছেন, তারা এই ফোনের ইউ আই তে নতুনত্ব টা খুব ভাল ভাবে টের পাবেন! কি বলব! এক কথায় অসাম এক্সপেরিয়েন্স!

প্রসেসরঃ
এই ফোনে ১.৩ গিগাহার্জ ক্লক স্পীডের কোয়াড কোর প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। এর প্রসেসিং ক্ষমতা খুবই ভাল, তাছাড়া মাল্টি কোর প্রসেসর আপনাকে দেবে মাল্টি টাস্কিং এর টোটাল সুবিধা!

 

র‍্যামঃ
সেটটিতে 2 জিবি র‍্যাম ব্যবহার করা হয়েছে। ফোনটির সফটওয়্যার অপটিমাইজেশন ও খুবই ভাল। দিনকে দিন সফটওয়্যার অপটিমাইজেশন এর দিক দিয়ে ওয়াল্টন অনেকটাই এগিয়ে যাচ্ছে। যার ফলে কম র‍্যামের ফোনেও খুব ভাল পারফরমেন্স পাওয়া যাচ্ছে। আর এটাতে তো 2 জিবি র‍্যাম, খুবই ভাল পারফরমেন্স! অবশ্য ইউজ করার সময় সতর্ক না থাকলে আপনি ফুল অপটিমাজেশন নাও পেতে পারেন।

 

রম ও স্টোরেজঃ
ফোনটিতে 16 জিবি রম ব্যবহার করা হয়েছে,  ফলে আর কোন চিন্তা নেই এপ্স ইন্সটল এর জায়গা নিয়ে!!!! তাছাড়া আপনি এই ফোনে ৩২ জিবি এক্সটারনাল মেমোরি কার্ড ইউজ করতে পারবেন। তাছাড়া OTG এর মাধ্যমে পেনড্রাইভ ও কার্ড রিডার তো ইউজ করতে পারবেন ই! ফলে স্টোরেজ নিয়ে কোন চিন্তা নেই।

 

জিপিইউঃ
এই ফোনে মালি ৪০০ এম পি ইউজ করা হয়েছে। HD ডিসপ্লের সাথে এই জিপিইউ এর পারফরমেন্স এতটা সন্তোষজনক না হলেও এই ফোনে এইডি গেমিং এবং মাল্টিমিডিয়ায় আমরা ভাল পারফরমেন্স পেয়েছি!

ক্যামেরাঃ
এই ফোনে ১৬ মেসগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে। এতে ব্যবহার করা হয়েছে BSI সেন্সর, যার ফলে ক্যামেরার লো লাইট ক্যাপচারিং ক্যাপাবিলিটি বৃদ্ধি পেয়েছে। সেই সাথে অটো ফোকাস টেকনোলজি তো আছেই!! তাছাড়া এই ফোনের ক্যাপচারিং স্পীড ও খুবই ভাল। এবং এর স্টক ক্যামেরা এপ এ অপশন অনেক!নিচে কিছু ছবি দেখলেই আপনারা ফোনের ক্যামেরা সম্পর্কে বুঝবেন।
আপনারা দেখতেই পাচ্ছেন, রাতের বেলাও এই ক্যামেরার ফ্ল্যাশ দিয়ে খুব ভাল ছবি উঠে।
এই ক্যামেরা দিয়ে আপনি ১০৮০পি ভিডিও ক্যাপচার করতে পারবেন। এই ফোনের ৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরার ক্যাপচার কোয়ালিটি ও ভাল।

 

মাল্টিমিডিয়াঃ
এই ফোনের ৩.৫ মিলিমিটার এর অডিও জ্যাক পোর্ট এ সাথে দেওয়া হেডফোন ইউজ করে গান শোনার মজাই আলাদা!

 

এই ফোনে ১০৮০পি ভিডিও ও আপনি ল্যাগ ছাড়া দেখতে পারবেন! মাল্টিমিডিয়া এর দিক দিয়ে সেট টা পারফেক্ট! তার উপর আবার এই ফোনের বিগ স্ক্রিন! মুভি দেখে অসাম মজা পাবেন, গ্যারান্টিড!

 

গেমিং:
Walton Primo RM২ তে গেম খেলার মজাই আলাদা! এতে এসফাল্ট ৮, মডার্ন কম্ব্যাট ৫, ফিফা ১৪-১৫ – এসব গেম ল্যাগহীন ভাবে খেলা গেছে!

কানেক্টিভিটিঃ
এই ফোনে ব্লুটুথ ৪.০, ওয়াইফাই, ওয়্যারলেস হটস্পট, ওয়্যারলেস ডিসপ্লে শেয়ারিং প্রভৃতি কানেক্টিভিটি সুবিধা রয়েছে। এছাড়া জিপিএস ও এজিপিএস নেভিগেশন সুবিধাতো রয়েছেই।

সিমঃ
এই ফোনে আপনি ডুয়াল সিম ইউজ করতে পারবেন, এবং খুবই ভাল কথা এই যে, দুই সিমেই আপনি ৩জি সাপোর্ট পাবেন। এর মধ্যে একটি ম্যাক্রো সিম, অন্যটি নরমাল সিম।

ব্যাটারিঃ
এই ফোনে ৫০০০ এম এ এইচ লিথিয়াম পলিমার এর ব্যাটারি ইউজ করা হয়েছে। যা বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় সাইজের বিগ সাইজের এইচ ডি ডিসপ্লে ও সফটওয়্যার সাপোর্ট দিয়েও এই ফোনে ১৮-২৪ ঘন্টা ব্যাটারি ব্যাকআপ ইজিলি পাবে।

সেন্সরঃ
এই ফোনে অ্যাক্সেলারো মিটার ৩ডি, প্রক্সিমিটি সেন্সর ও লাইট সেন্সর দেওয়া হয়েছে।

 

বেঞ্চমার্ক টেস্টঃ
সাধারণত কোন সেট এর বেঞ্চমার্ক টেস্ট করে সেটটির স্কোর দেখে তা ব্যবহার না করেই এর পার্ফরমেন্স সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়। তো, আমরা তাই বেঞ্চমার্ক টেস্ট করার জন্য AnTuTu বেঞ্চমার্ক ব্যবহার করি। এতে এর স্কোর এসেছে ১৯৬২০। এই বাজেটে যে কোন ফোনের জন্য একটি খুবই ভাল স্কোর!!!

 

নেনামার্ক

গ্রাফিক্স টেস্ট করার এপ নেনামার্ক ২ তে সেটটির স্কোর এসেছে ৫৪.৮ । ভাল স্কোর। তবে স্কোর এর চেয়ে আমরা আরো ভাল পারফরমেন্স পেয়েছি বলেই আমাদের ধারণা। এই বাজেটে অন্যান্য যেকোন ফোনে আপনারা যেমন পারফরমেন্স পাবেন, তেমনি পারফরমেন্স এটাতেও পাবেন।

ওটিজিঃ
এই টাকে এখানে স্থান দিতে কষ্ট হইতেসে, কারণ এখন ওয়াল্টন এর প্রায় সব সেটেই এই ফিচার দেখা যায়! তবু, ফিচার টা তো স্পেশাল! OTG কি আশা করি এখন ও কারো জানার বাকি নাই, তবু একটু বলি। আপনি ওটিজি ইউজ করে আপনার ফোনে পেনড্রাইভ, কার্ড রিডার, মাউস, কীবোর্ড সহ আরো অনেক ইউ এস বি এনাবলড ডিভাইস ইউজ করতে পারবেন!

ওটিএঃ
এটার ও অবস্থা আগের টার মতই, এখন সব ওয়াল্টন সেটেই দেওয়া হয়। যেকোন স্থানে, যেকোন সময় এ, আপডেট আপনার পকেট এ!

স্মার্ট এওয়েকঃ
ফোনের ডিসপ্লে অফ থাকা অবস্থায় ফোনের ডিসপ্লের উপর বিভিন্ন জেসচার আকলে বিভিন্ন কাজ হবে!! সেটিংস থেকে গিয়ে সেট করতে পারবেন এটা আপনি।

 

Anti Theft:
এই ফোনের সিকিউরিটির কথা মাথায় রেখে ওয়াল্টন মোবাইল এ বিল্ট ইন এন্টি থেফট প্রোগ্রাম ইউজ করেছে, যা অন্য সব এপের চেয়ে খুব ভাল কাজ করবে। এই ফিচার এর ফলে আপনি রিমোটলি একটি মাত্র মেসেজের মাধ্যমে আপনার ফোন লক করে দিতে পারবেন, ডাটা ক্লিয়ার করে দিতে পারবেন। তাছাড়া লোকেশন ট্র্যাকিং এর ব্যবস্থাও করা যাবে।
এছাড়া আরো অনেক ফিচার এই ফোনে আছে, যা আমি কীভাবে বর্ণনা করব বুঝতে পারছি না। তাছাড়া এত কথা বলাও যাবে না। আপনি ইউজ করলেই ধরতে পারবেন! অসাধারণ ফিচার যুক্ত, চরম স্টাইলিশ ও খুব ভাল পারফর্মেন্স সমৃদ্ধ এই ফোনের দাম ওয়াল্টন কর্তৃপক্ষ মাত্র  ১১৯৯০  টাকা নির্ধারণ করেছে। আমার মতে পারফেক্ট প্রাইস !

About 26

author

This user may not interusted to share anything with others

Related Posts

PC Helpline BD Facebook